আজ ১৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

পাকুন্দিয়া আওয়ামী লীগের কমিটি নিয়ে দুপক্ষের সংঘর্ষ, সড়ক অবরোধ

প্রথমে বর্তমান এমপি নূর মোহাম্মদরে নেতৃত্বে ২১ বছর পর পাকুন্দিয়া উপজেলা
আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটি গঠন। জেলা আওয়ামী লীগের সেই কমিটিকে অনোমোদন না দেয়া। পরে সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট সোহরাব উদ্দিনকে আহবায়ক করে কমিটি গঠন করে জেলা আওয়ামী লীগের অনুমোদন।
এ নিয়ে তিন মাস ধরে কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘাত-সংঘর্ষ, সড়ক অবরোধ, বাড়িঘর ভাংচুর, চলছিল। এ পরিস্থিতির মধ্যে গতকাল শনিবার সকালে সাবেক এমপি সোহরাবউদ্দিনের নেতৃত্বে জেলা আওয়ামীলীগ অনুমোদিত উপজেলা আওয়ামী  লীগের আহবায়ক কমিটির প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয়। বিষয়টি ঘিরে উপজেলা আওয়ামী
লীগের দুই পক্ষের মধ্যে নতুন করে আবার উত্তেজনা বিরাজ করছে। শনিবার সকালে উপজেলার পাটুয়াভাঙ্গা ইউনিয়নের দরগাবাজারে উপজেলা আওয়ামী লীগের নতুন আহবায়ক এডভোকেট মো. সোহ্রাব উদ্দিনের বাড়িতে আহবায়ক কমিটির প্রথম এ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। অন্যদিকে একই সময়ে বর্তমান আহবায়ক কমিটি
বিরোধী বর্তমান সংসদ সদস্য নূর মোহাম্মদ সমর্থকরা কিশোরগঞ্জ-ভৈরব আঞ্চলিক
মহাসড়কের কালিয়াচাপড়া এলাকায় সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ ও অবরোধ কর্মসূচি
পালন করেন। এ সময় পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
 এর আগে শুক্রবার সন্ধ্যায় কমিটি বিরোধে উপজেলার দরগাবাজারে বর্তমান ও সাবেক এমপির সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও এক পর্যায়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ
সময় পুলিশকেও আহত করে আওয়ামী লীগের লোকজন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে
পুলিশ ১৯ রাউন্ড শর্টগানের ফাঁকা গুলি ছুড়ে ও অসংখ্য টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। সাবেক এমপি পক্ষের আহবায়ক কমিটির সভা হওয়ার পর এলাকায় এখন থমথমে অবস্থা
বিরাজ করছে। দুই পক্ষই অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হচ্ছে বলে জানা গেছে। এ পরিস্থিতিতে যে
কোন সময় এ উপজেলায় আওয়ামী লীগের লোকজনের মধ্যে বড় ধরণের রক্তক্ষযী সংঘর্ষের
আশংকা করছেন স্থানীয়রা। এদিকে শুক্রবারে সংঘর্ষের ঘটনায় আহুতিয়া তদন্ত কেন্দ্রের এসআই জাকির হোসেন বাদী  হয়ে পাকুন্দিয়া থানায় একটি মামলা (নং-১০, তারিখ- ১৫/১০/২০২১) দায়ের করেছেন। দণ্ডবিধির ১৪৩/১৪৭/৩৩২/৩৩৩/৩৫৩ ধারায় দায়ের করা মামলায় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার সময় আটক হওয়া দু’পক্ষের ১০ নেতাকর্মীর নামোল্লেখ এবং অজ্ঞাত ১৫০/২০০ জনকে আসামি
করা হয়েছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, দরগাবাজারে উপজেলা আওয়ামী লীগের আহŸায়ক এডভোকেট
মো. সোহ্রাব উদ্দিনের বাড়ি ‘শিকড়’ এ আহবায়ক কমিটির প্রথম সভা অনুষ্ঠিত
হয়। সভায় ৬৭ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটির ৫৭ জন সদস্য অংশ নেন।বিষয়টি জানতে পেরে এই কমিটি বিরোধী কিশোরগঞ্জ-২ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য নূর মোহাম্মদের সমর্থকরা কিশোরগঞ্জ-ভৈরব আঞ্চলিক মহাসড়কের কালিয়াচাপড়া এলাকায় সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ ও অবরোধ কর্মসূচি পালন করেন।
কিশোরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক সাবেক সংসদ সদস্য এডভোকেট মো.
সোহ্রাব উদ্দিনের সভাপতিত্বে সভায় তার কমিটির লোকজন উপস্থিত ছিলেন। সভায় অ্যাডভোকেট মো. সোহ্রাব উদ্দিন দলকে শক্তিশালী করতে তৃণমূলের ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন পর্যায়ে কমিটি গঠনসহ সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের সুফল মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহবায়ক জানান। তিনি সংঘাতের
রাজনীতি পরিহার ও যেকোন ধরণের প্রতিহিংসার রাজনীতি থেকে বেরিয়ে আসার জন্যও বিবদমান পক্ষগুলোর প্রতি আহবায়ক জানান। সভা শেষে আওয়ামী লীগ এবং অঙ্গ-সহযোগী
সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক এডভোকেট মো. সোহ্রাব উদ্দিনকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান।
প্রসঙ্গত, গত ২২শে জুলাই জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির এক সভায় সর্বসম্মতিক্রমে এডভোকেট মো. সোহরাব উদ্দিনকে আহবায়ক নির্বাচিত করে এক সদস্যবিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করা হয়। এ ঘোষণায় ক্ষিপ্ত হন বর্তমান সংসদ সদস্য
নূর মোহাম্মদ সমর্থক নেতাকর্মীরা। তারা আহবায়ক এডভোকেট মো. সোহরাব উদ্দিনের অব্যাহতি চেয়ে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেন। এরপরও গত ৯ সেপ্টেম্বর পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের ৬৭ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটির অনুমোদন
দেয় জেলা আওয়ামী লীগ। কমিটি অনুমোদনের পর গতকাল শনিবার পাকুন্দিয়া উপজেলা
আওয়ামী লীগের নবগঠিত আহবায়ক কমিটির প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয়।

Comments are closed.

     এই ক্যাটাগরিতে আরো সংবাদ