আজ ৩রা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৬ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

নিকলীতে বউ শ্বাশুড়ির ঝগড়ায় ছেলের আত্মহত্যা

শাফায়েত নুরুলঃ কিশোরগঞ্জের নিকলীতে শনিবার (৬ আগষ্ট) সকাল ৭ টায় বউ শাশুড়ির দীর্ঘদিনের ঝগড়াকে কেন্দ্র করে ছেলে মোঃ ছেনু মিয়া (৩৫) আত্মহত্যা করেছেন। ঘটনাটি ঘটেছে নিকলী উপজেলার জারুইতলা ইউনিয়নের সাজনপুর গ্রামে।

মোঃ ছেনু মিয়ার মা মরচান বেগম (৬০) জানান, মা এবং পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের থেকে ছেনু মিয়াকে বিচ্ছিন্ন করে রাখতে তার পুত্রবধু দেলোয়ারা বেগম প্রায় সময় ঝগড়া এবং কলহল লাগিয়ে রাখতেন। যে কারণে ছেনু মিয়ার সংসারে অশান্তি বিরাজ করছিল।

এ নিয়ে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা একাধিকবার বউ শাশুড়ির ঝগড়া মেটাতে দেন দরবার করেন। তাতেও বউ শাশুড়ির ঝগড়া মিটচ্ছিল না। সর্বশেষ মায়ের কাছ থেকে ছেলেকে বিচ্ছিন্ন করতে স্ত্রী দেলোয়ারা বেগম স্বামী ছেনু মিয়াকে পৈত্রিক বাড়ি বিক্রি করে অন্যত্র চলে যেতে চাপদেন। এতে স্বামী ছেনু মিয়া রাজি হয়নি। এ নিয়ে ছেনু মিয়ার মা মরচান বেগম ও স্ত্রী দেলোয়ারা বেগম এরমধ্যে ঝগড়াঝাটি চরম রূপ নেয়। এরই সূত্র ধরে আজ শনিবার সকালে আবারো স্বামী ছেনু মিয়া স্ত্রী দেলোয়ারা বেগমের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে স্ত্রী দেলোয়ারা বেগম স্বামীকে বলেন, তুমি বাড়ি বিক্রি করতে না পারলে ফাঁস নিয়ে মরতে পারো না

এ কথা বলে দেলোয়ারা বেগম গৃহস্থলীর কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। কিছুক্ষণ পর দেলোয়ারা বেগম বসতঘরের দরজা লাগানো দেখতে পায়। বিষয়টি জানাজানি হলে প্রতিবেশীরা এসে দরজা খুলে ছেনু মিয়াকে ঘরের বরগার সঙ্গে ফাঁস নিয়ে ঝুলে থাকতে দেখতে পায়। খবর পেয়ে নিকলী থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন এবং লাশের সূরত হাল শেষ করে, ময়না তদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ জেলা সদরে প্রেরণ করেছেন।

এ ঘটনার সততা স্বীকার করে নিকলী থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ আখতারুজ্জামান খান জানান, লাশের ময়না তদন্তের জন্য জেলা সদরে প্রেরণ করা হয়েছে এ বিষয়ে থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের হয়েছে।

Comments are closed.

     এই ক্যাটাগরিতে আরো সংবাদ