আজ ১৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ২রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

৫’শ টাকার বাজি ধরে সাঁতরে নদী পার হওয়ার সময় যুবক নিখোঁজ 

আসলাম উদ্দিন আহম্মেদ, কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ
বিয়ের অনুষ্ঠান শেষে ফেরার পথে নৌকায় নদী পাড় হওয়ার সময় বর যাত্রীদের সাথে ৫’শত টাকার বাজি ধরে নদীতে লাফ দিয়ে এক যুবক নিখোঁজ হবার খবর পাওয়া গেছে। কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী উপজেলার  দুধকুমার নদীর শহিদুলের ঘাট এলাকায় রবিবার মধ্যরাতে (৫ ফেব্রুয়ারি) এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিখোঁজ যুবকের নাম বাবুল (২২)। সে উপজেলার পাইকেরছড়া ইউনিয়নের মাওলানা পাড়ার আনিছ উদ্দিনের পুত্র। ভূরুঙ্গামারী থানার অফিসার ইনচার্জ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।
এ রিপোর্ট লেখার সময় সোমবার সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত বাবলুকে খুঁজে পাওয়া যায়নি।
বরযাত্রীদের একাধিক সূত্র জানায়, উপজেলার পাইকেরছড়া ইউনিয়নের পাইকেরছড়া মাওলানা পাড়ার মোজাম্মেল হকের পুত্র হাসেম আলীর সাথে একই উপজেলার তিলাই ইউনিয়নের খোচা বাড়ির চরের মৃত হযরত আলীর কন্যার  আনুষ্ঠানিকভাবে বিয়ে হয়।
রবিবার কনের বাড়িতে বিয়ের অনুষ্ঠান শেষে  বরযাত্রীরা বাড়ি ফেরার সময় রাত আনুমানিক বারোটার দিকে নৌকায় করে দুধকুমার নদী পাড়ি  দিচ্ছিল। এসময় নৌকায় থাকা বরের ফুপাতো ভাই বাবলু মিয়া মধ্যরাতে সাঁতরে নদী পার হওয়ার জন্য বরযাত্রীদের সাথে ৫’শ টাকার বাজি ধরেন। বরযাত্রীরা বাজিতে রাজি হলে বাবলু মাঘের কনকনে ঠান্ডায় মাঝ নদীতে ঝাপ দেয়। সে সাঁতরিয়ে কিছুদূর যেতে না যেতেই তীব্র স্রোতের ঘূর্ণিপাকে পানিতে তলিয়ে যায়। এরপর বিব্রত বরযাত্রীরা ঐ রাতেই খোঁজাখুঁজি করলেও তাকে আর খুঁজে পায়নি।
আজ (সোমবার) সকালে খবর পেয়ে রংপুর ফায়ার সার্ভিসের একটি ডুবুরিদল দুধকুমার নদীর শহিদুলের ঘাট এলাকার ঘটনাস্থলে পৌঁছে দিনভর সন্ধান চালালেও সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টা পর্যন্ত নিখোঁজ বাবলুকে উদ্ধার করতে পারেনি। সন্ধ্যা ৬ টার দিকে ডুবুরি দল তাদের অভিযান সমাপ্ত করে রংপুর ফিরে যান।
ভূরুঙ্গামারী থানার ওসি নজরুল ইসলাম জানান, ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল ছয়টা পর্যন্ত অভিযান চালালেও নিখোঁজ ব্যক্তিকে পাওয়া যায়নি।

Comments are closed.

     এই ক্যাটাগরিতে আরো সংবাদ