আজ ১৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শ্বশুর বাড়িতে জামাইয়ের মৃত্যু,এলাকাবাসীর মানববন্ধন 

আসলাম উদ্দিন আহম্মেদ, কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ কুড়িগ্রামের উলিপুরে জামাইকে শ্বশুর বাড়িতে দাওয়াত দিয়ে ডেকে নিয়ে অমানুষিক নির্যাতন। পুলিশ কর্তৃক উদ্ধার। রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা গেলেন জামাই। লোমহর্ঘষক ঘটনাটি ঘটেছে, উলিপুর পৌরসভার আব্দুল হাকিম গ্রামে।গত ১ বছর পূর্বে উপজেলার  তবকপুর ইউনিয়নের মিয়াজি পাড়া গ্রামের ফয়জার রহমানের পুত্র ল মোঃ সিয়াম বাবু সুজনের(২৩)সাথে পৌরসভার আব্দুল হাকিম গ্রামের আব্দুল হামিদের মেয়ে হাবিবা বেগমের বিয়ে হয়।গত ৬ মার্চ স্ত্রী হাবিবা ও তার ভাই জাহিদ সুকৌশলে দাওয়াত দিতে তাদের বাড়িতে ডেকে আনে।এরপর সুজনকে ঘরে আটকিয়ে পরিবারের লোকজন লোহার রডসহ মারাত্মক অস্ত্র দিয়ে  দু’দিন ধরে আটকে রেখে অমানষিক নির্যাতন চালায়।অবস্থা গুরুতর হলে তবকপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমানকে জানালে  তিনি ৯৯৯ এ ফোন করে পুলিশের সহায়তায় সুজন মিয়াকে উদ্ধার করে উলিপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে  প্রেরণ করেন। কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালের ডাক্তারগণ তার অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে উন্নত চিকিৎসার জন্য পরদিন রংপুর  মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান।সেখানে জ্ঞান ফিরে না আসায় এক পর্যায়ে ১৫ মার্চ রাত ১টা ৪০ মিনিট এ মারা গেছেন। এ ব্যাপারে ১৫ মার্চ রাতে উলিপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা নং ২২, তারিখঃ১৫/০৩/২০২৩ ইং।
এদিকে হত্যাকান্ডে জড়িত ব্যক্তিদের গ্রেফতারের দাবীতে ১৬ মার্চ বেলা ১২ টায় নিহতের এলাকা তবকপুর মিয়াজী পাড়া থেকে আগত শতাধিক নারী পুরুষ উলিপুর সদরের বড় মসজিদ মোড়ে এক মানববন্ধন করে ।এ সময় বক্তব্য রাখেন,সোহেল রানা,হামিদুল ইসলাম, আব্দুর রউফ টিটু,ক্ষেতমজুর সমিতির নেতা বিশ্বজিৎ সিংহ বাপ্পা প্রমূখ।পরে বিক্ষোভকারীরা বিক্ষোভ সহকারে উপজেলা পরিষদের সামনে গিয়ে সমাবেশ করেন। এসময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার শোভন রাংসা ও ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা তাদের শান্ত করে বলেন যে কোন মূল্যে আসামিদের ধরা হবে।
এ ব্যাপারে উলিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা শেখ আশরাফুজ্জামান জানান, এ ঘটনায় ১ ব্যাক্তিকে আটক করা হয়েছে। অন্যান্য আসামিদের ধরতে জোড় প্রচেষ্টা চলছে।

Comments are closed.

     এই ক্যাটাগরিতে আরো সংবাদ