আজ ১লা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৪ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কিশোরগঞ্জ-১ আসনে নৌকার জয়, জামানত হারালেন ছয় প্রার্থী

কিশোরগঞ্জের ছয়টি আসনের মধ্যে কিশোরগঞ্জ-১ (সদর-হোসেনপুর) আসন ছিলো জাতীয় আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে। এ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ছিলেন বাংলাদেশের প্রথম অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলামের কন্যা ও আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক প্রয়াত সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের ছোট বোন ডা. সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপি এমপি (নৌকা)।

নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে তার সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন বড় ভাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাবেক সামরিক সচিব মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ সাফায়েতুল ইসলাম (ঈগল)। ফলে ভাই-বোনের ভোটযুদ্ধ উত্তাপ ছড়ায় এ আসনের নির্বাচনী রাজনীতিতে।

হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে শেষ হাসি হেসেছেন ছোট বোন সংসদ সদস্য ডা. সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপি। তিনি ৩ হাজার ১৮৬ ভোটের ব্যবধানে বড় ভাই সৈয়দ সাফায়েতকে পরাজিত করেছেন।

ডা. সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপি ৭৭ হাজার ৩৪৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ সাফায়েতুল ইসলাম পেয়েছেন ৭৪ হাজার ১৬২ ভোট।

এ আসনের অন্য ছয় প্রার্থীর ছয়জনেরই জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছে। এ আসনে প্রদত্ত ভোটের সংখ্যা ১ লাখ ৬১ হাজার ৫৩৫। সে হিসেবে জামানত রক্ষার জন্য একজন প্রার্থীর প্রয়োজন কমপক্ষে ২০ হাজার ১৯১ ভোট।

কিন্তু এ আসনের আটজন প্রার্থীর মধ্যে ছয়জন প্রার্থীই জামানত রক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যক ভোট পাননি। ফলে ছয়জন প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছে।

এই ছয়জন প্রার্থীর মধ্যে জাতীয় পার্টির মো. আবদুল হাই (লাঙ্গল) ৪৭০৪ ভোট, গণতন্ত্রী পার্টির ভূপেন্দ্র চন্দ্র ভৌমিক দোলন (কবুতর) ১৭৪৭ ভোট, ইসলামী ঐক্যজোটের (আইওজে) মো. আশরাফ উদ্দিন (মিনার) ৩৯৮ ভোট, বাংলাদেশ কংগ্রেসের মোবারক হোসেন (ডাব) ২৪৭ ভোট, এনপিপি’র মো. আনোয়ারুল কিবরিয়া (আম) ২১১ ভোট ও বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মুক্তিজোটের মো. আব্দুল আউয়াল (ছড়ি) ১১৪ ভোট পেয়েছেন।

নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ও কিশোরগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবুল কালাম আজাদ স্বাক্ষরিত প্রাথমিক বেসরকারি ফলাফল থেকে ভোটের এই পরিসংখ্যান পাওয়া গেছে।

Comments are closed.

     এই ক্যাটাগরিতে আরো সংবাদ