আজ ১৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

ইটনায় ইব্রাহিম হত্যা মামলা বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

কিশোরগঞ্জ জেলার ইটনা উপজেলার রায়টুটি ইউনিয়নের গোয়াড়া এলাকায় পুলিশের উপর হামলাকারী মামলার এজাহার ভুক্ত মামলা নং (০৫) (তারিখ ১৯-১২-২০২০) দুই আসামির হামলার শিকার হয়ে এবার নিহত হয়েছে ইব্রাহিম নামের যুবক।

ইব্রাহিম হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে আজ শনিবার (২৯ এপ্রিল) সকাল ১১ টায় গোয়ারা এলাকায় মানববন্ধন করেছেন এলাকাবাসী ও আত্মীয়স্বজনরা। এলাকাবাসী ও মামলার সূত্রে জানা যায় এলাকার চিহ্নিত বিভিন্ন অপরাধের মূল হোতা পুলিশের উপর হামলাকারী মামলার এজাহার ভুক্ত আসামি ধনু তালুকদার ও তার পুত্র রাজন মিয়া সহ চিহ্নিত ২৪ জন মিলে ঈদের দিন (২২-৪-২০২৩) সকাল ১০ ঘটিকায় রাজন গংরা ইব্রাহিম কে রাস্তায় তাহের খার দোকানের সামনে আটকিয়ে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে আঘাত করলে তার মৃত্যু হয়। তাকে উদ্ধার করতে আসলে লিয়াকত আলী, তমজীত মিয়া, মনজুর আলী, হারুন মিয়া, গুরুতর আহত হয়। এলাকাবাসী তাদের উদ্ধার করে তাড়াইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে ইব্রাহিমকে মৃত ঘোষনা করেন দায়িত্বরত চিকিৎসক।
আহত অন্যান্যদের হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় ইটনা থানায় নিহত ইব্রাহিমের মা ২৪ জনের নাম উল্লেখ করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন যাহার নং ০৬ তারিখ ২৪-৪-২০২৩।
নিহত ইব্রাহিমের মা সামছুন্নাহার ও তাদের পরিবারের লোকজন বলেন গত ছয় মাস পূর্বে রাজনের সাথে আমার ছেলের খেরাম খেলা নিয়ে তর্ক বিতর্কের কারণে সাতদিন পর্যন্ত আমাদের গৃহবন্দী করে রাখে ধনু তালুকদারের পরিবারের লোকজন । স্থানীয় চেয়ারম্যান মেম্বাররা বিষয়টি মীমাংসা করার জন্য ধনুর পরিবারের লোকজনকে অনুরোধ করলেও তারা তা মীমাংসা করেনি তার জেরধরে ইব্রাহিমের কর্মস্থল ঢাকার নিমতলী এলাকায় বসবারত ধনু তালুকদারের লোকজন আমাদের উপর কয়েক বার হামলার চেষ্টা করে। আমরা ঈদে বাড়ীতে আসলে ইব্রাহিমকে হত্যা করেও তারা শান্ত হয়নি।
পুনরায় তারা আমাদের কর্মস্হল ঢাকা নিমতলী ও বাড়ীতে যেকোনো সময় তাদের আত্মীয়দের দিয়ে হামলা করাতে পারে। ফলে আমরা জান মালের নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।


ইব্রাহিম হত্যার পর থেকে উক্ত এলাকায় ইটনা উপজেলার বাদলা তদন্ত কেন্দ্রের এস আই মফিজুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে নিরাপত্তা দায়িত্বে রয়েছে তিনি বলেন, বর্তমানে এলাকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। কোন ধরনের সমস্যা নেই।
রায়টুটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এনামুল হক খান মিল্কি ( বাবু) সাংবাদিকদের জানান ইব্রাহীম হত্যা কান্ডটি নিন্দানীয় এই হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িতদের শাস্তি দাবি করছি। এ ব্যাপারে ইটনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ কামরুল ইসলাম মোল্লা জানান থানায় হত্যা মামলা রুজু করা হয়েছে।আসামি গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Comments are closed.

     এই ক্যাটাগরিতে আরো সংবাদ