আজ ৩রা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৬ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কিশোরগঞ্জে তামাকজাত দ্রব্যের প্রচার রোধে আলোচনা সভা

স্টাফ রিপোর্টার: তামাক নিয়ন্ত্রণ জরুরী তামাকের ধোঁয়ায় ৭ হাজারের বেশি ক্ষতিকর রাসায়নিক রয়েছে,যা শরীরের প্রতিটি অঙ্গপ্রত্যঙ্গের ক্ষতি করে।এদের মধ্যে প্রায় ৭০টি রাসায়নিক মানবদেহে ক্যান্সার সৃষ্টি করে।তামাক প্রাণঘাতী নেশাদ্রব্য ও মাদক সেবনের প্রবেশ পথ।এছাড়াও তামাক চাষ,প্রক্রিয়াজাতকরণ ও সেবন প্রতিটি ধাপে জনস্বাস্থ্য,পরিবেশ ও অর্থনীতির ক্ষতি করে।বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা-২০২০ এর তথ্য অনুযায়ী,প্রতিবছর পৃথিবীতে প্রায় ৮০লক্ষাধিক মানুষ তামাক সেবনের কারণে মারা যায়।এর মধ্যে পরোক্ষ ধূমপানে ১২লক্ষাধিক মানুষ মারা যায়।
তামাকজাত দ্রব্যের সব ধরনের বিজ্ঞাপন, প্রচার ও পৃষ্ঠপোষকতা প্রতিরোধে সাংবাদিকদের করণীয় বিষয়ে কিশোরগঞ্জে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার (২৩ আগস্ট) দুপুরে কালীবাড়ির ৩য় তলায় নাটাবের অস্থায়ী কার্যালয়ে বাংলাদেশ জাতীয় যক্ষ্মা নিরোধ সমিতি (নাটাব) জেলা কমিটির আয়োজনে এই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় সংগঠনের জেলা কমিটির সভাপতি সিনিয়র সাংবাদিক সাইফুল হক মোল্লা দুলু’র সভাপতিত্বে এতে প্রতিপাদ্য বিষয় সম্পর্কে বিশদ আলোকপাত করেন নাটাব প্রজেক্ট ম্যানেজার ফিরোজ আহমেদ।এছাড়া কিশোরগঞ্জে তামাকের ব্যবহার ও প্রচারের নানা দিক তুলে ধরে অন্যান্যের মধ্যে নাটাবের জেলা প্রোগ্রাম অফিসার মো. রবিউল ইসলাম, জি টিভির জেলা প্রতিনিধি মনিরুজ্জামান খান চৌধুরী সোহেল, দৈনিক মানবজমিনের স্টাফ রিপোর্টার (কিশোরগঞ্জ) আশরাফুল ইসলাম, বাংলাদেশ প্রতিদিনের জেলা প্রতিনিধি সাইফউদ্দিন আহমেদ লেলিন, আমাদের নতুন সময়ের জেলা প্রতিনিধি মো: ফারুকুজ্জামান, নয়া দিগন্তের জেলা প্রতিনিধি মো: আল আমিন, জনকণ্ঠের জেলা প্রতিনিধি মাজহার মান্না,আজকের পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি সাজন আহম্মেদ পাপন,শতাব্দীর কন্ঠের স্টাফ রিপোর্টার তাসলিমা আক্তার মিতু বক্তৃতা করেন।
বক্তারা ধুমপান বা তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহারে কোন সুফল নেই। বরং এর ব্যবহার ভয়াবহ স্বাস্থ্য ঝুঁকি তৈরি করছে। এই ভয়াবহ স্বাস্থ্য ঝুঁকির বিষয়টি বিবেচনায় রেখে তামাকজাত দ্রব্য নিয়ন্ত্রণে সরকার কাজ করছে।
এর অংশ হিসেবে জেলা প্রশাসন নিয়মিত ধূমপানবিরোধী ভ্রাম্যমাণ আদালতও পরিচালনা করছে।বিশেষ করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও চিকিৎসা কেন্দ্রগুলোতে ১০০ মিটারের মধ্যে তামাক ব্যবহার ক্রয় বিক্রয়কে নিরুৎসাহিত করতে হবে।
এ পরিস্থিতিতে তামাকমুক্ত বাংলাদেশ অর্জনে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় প্রস্তাবিত সংশোধিত তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন দ্রুত পাশের জন্য গণমাধ্যম কর্মীদের ভূমিকা রাখার আহ্বান জানায় সংগঠনটি।
এ ব্যাপারে সমাজের সকল স্তরের মানুষের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টিতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার জন্য তিনি আহ্বান জানান।

Comments are closed.

     এই ক্যাটাগরিতে আরো সংবাদ